Alexa

অন্তঃকোন্দলে আর্জেন্টিনার এমন পরাজয়!

ওয়ার্ল্ড কাপ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

...

বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে নবাগত আইসল্যান্ডের বিপক্ষে হতাশাজনক ‘ড্র’। সেই ম্যাচে দলের প্রধান খেলোয়াড় পেনাল্টি থেকে সহজ গোল আদায় করে নিতে পারলেন না। দ্বিতীয় ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ৩-০ গোলের লজ্জাজনক পরাজয়ে বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকেই বাদ পড়ার সমূহ সম্ভাবনা।

আর্জেন্টিনা দলের খেলোয়াড়দের মানের সঙ্গে কোনোভাবেই এমন ফলাফল মেনে নিতে পারছেন না তাদের কোটি সমর্থকরা। খেলোয়াড়দের মান নিয়ে নেই কোনো প্রশ্ন, দলের প্রায় প্রত্যেকেই বড় বড় ক্লাবের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। দলে আছেন ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় লিওনেল মেসি। তার সঙ্গী আগুয়েরো, হিগুয়াইন, মাশ্চেরানো, ডি মারিয়ার মতো প্রতিভাবান ও দক্ষ ফুটবলার। এর বাইরেও দলে রয়েছেন দিবালা, পাভন ও মেজার মতো তরুণ প্রতিভা।

দলের সামর্থ্য ও শক্তির বিচারে আর্জেন্টিনার ধারেকাছে নেই আইসল্যান্ড। সবশেষ ম্যাচের প্রতিপক্ষ ক্রোয়েশিয়াও ফিফা র‌্যাংকিংয়ের অনেক পিছিয়ে ২০ নম্বরে অবস্থান করছে। অন্যদিকে আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপে এসেছে শিরোপার অন্যতম দাবিদার হয়েই। তারপরও তুলনামূলক দুর্বল প্রতিপক্ষের বিপক্ষে খেলতে গিয়ে নাস্তানাবুদ হতে হয়েছে আর্জেন্টিনাকে। ম্যাচে দলের সুপারস্টারদের প্রত্যেকেই হয়ে ছিলেন নিজের ছায়া হয়ে।

এ অবস্থায় প্রশ্ন উঠেছে আর্জেন্টিনা দলের ঐক্য নিয়ে। কোচের সঙ্গে খেলোয়াড়দের দ্বন্দ্ব চলছে বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে বেশ কয়েকটি সংবাদ মাধ্যম। আর্জেন্টিনার স্থানীয় সংবাদমাধ্যম মুন্দো আলবিসিলেস্তে তো বলছে, মেসি-মারিয়া-মাশ্চেরানোসহ সিনিয়র খেলোয়াড়রা মিটিং করে কোচের বরখাস্ত চেয়ে ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের কর্তাদের কাছে আবেদনও জানিয়েছেন।
হতাশায় মুখ ঢাকছেন মেসি-আগুয়েরোক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে হতাশাজনক পরাজয়ের পর ম্যানসিটির স্ট্রাইকার সার্জিও আগুয়েরো তো প্রকাশ্যেই এক টিভি সাক্ষাৎকারে কোচের প্রতি বিরক্তির কথা প্রকাশ করেছেন। কোচ হোর্হে সাম্পাওলিও ব্যর্থতার দায় চাপিয়েয়েছেন খেলোয়াড়দের ওপরই।

পাল্টাপাল্টি বক্তব্যে বোঝাই যাচ্ছে আর্জেন্টিনার ড্রেসিং রুমে চলছে দ্বন্দ্ব। তবে এ দ্বন্দ্ব বিশ্বকাপে বাজে পারফরম্যান্সের পর শুরু হয়নি। এর মূল আরো অনেক আগেই। প্রথমেই দল নির্বাচনের সময় ইতালিয়ান লিগের সর্বোচ্চ স্কোকার মাউরো ইকার্দিকে বাদ দেন হোর্হে সাম্পাওলি। তখনই গুঞ্জন ওঠে ব্যক্তিগত অপণ্দের জেরেই ইকার্দিকে বাদ দিয়েছেন আর্জেন্টাইন কোচ। ইকার্দি নিজেও এমন অভিযোগই করেছিলেন আকারে ইঙ্গিতে। 

ইকার্দির পর সাম্পাওলির ভূমিকা আবারো প্রশ্নবিদ্ধ হয় দলের প্রধান গোলরক্ষক সার্জিও রোমেরো ইনজুরিতে পড়ে স্কোয়াড থেকে বাদ পড়লে। রোমেরো ও তার পরিবার দাবি করে, ইনজুরি গুরুতর নয়। বিশ্বকাপ শুরু হতে তখনো ১০ দিনেরও বেশি বাকি। আর রোমেরো দাবি করেন তিনি সপ্তাহখানেকের মধ্যেই ম্যাচ ফিটনেস ফিরে পাবেন। রোমেরোর এই দাবির পরই সাম্পাওলির বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় ওঠে আর্জেন্টিনার মিডিয়ায়।

বিশ্বকাপে আসার আগেই নানা ইস্যুতে বিতর্কে জড়ানো সাম্পাওলি নিজের ফুটবল দর্শনকেও সমালোচনার মুখে ফেলে দেন। প্রথম ম্যাচে আইসল্যান্ডের বিপক্ষে দিবালা ও পাভনকে না খেলানো এবং মেসিকে ভিন্ন পজিশনে খেলিয়ে সমালোচিত হন তিনি। পরের ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ৩-৪-৩ ফরমেশনে খেলিয়ে নিজের অস্থিরতার প্রকাশ ঘটান। 

ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে সবচেয়ে দৃষ্টিকটু লেগেছে দলের প্রধান তারকা লিওনেল মেসির নিষ্প্রভ থাকা। পুরো প্রথমার্ধজুড়ে তিনি বলে পা ছুঁইয়েছেন মাত্র ২০ বার। দ্বিতীয়ার্ধেও মেসিকে দেখা গেছে হতাশায় ভুগতে। আর্জেন্টিনা প্রথম গোলটি হজম করার পর ম্যাচের তখনো ৩৫ মিনিট বাকি ছিলো। গোল পরিশোধে মরিয়া না হয়ে মাঠজুড়ে আর্জেন্টিনার খেলোয়াড়দের দেখা যায় পরিকল্পনাহীন দৌড়াদৌড়ি করতে। সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে আরো বিবর্ণ হতে থাকেন মেসি। দলের অধিনায়ক হিসেবে সহযোদ্ধাদের উজ্জীবিত না করে তিনিও হতাশায় নিমজ্জিত হন। হতাশায় ভুগে হঠাৎ মেজাজ হারিয়ে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়ের সঙ্গে অশোভন আচরণও করে বসেন তিনি।

পুরো ম্যাচটিতেই খাপছাড়াভাবে খেলেছে আর্জেন্টিনা। দেখে মনে হয়েছে রক্ষণাভাগ, মধ্যমাঠ কিংবা আক্রমণভাগের খেলোয়াড়রা ভুলেই গেছেন কার কী দায়িত্ব! মেসি-মাশ্চেরানো-ওতামেন্দিদের এমন অপিরণত, অপরিকল্পিত ও হতাশাজনক পারফরম্যান্সের পরই প্রশ্ন উঠেছে আর্জেন্টিনা দলের মধ্যকার ঐক্য নিয়ে। অনেকেই ইতিমধ্যেই ভাঙনের সুর শুনছেন। দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে দ্বন্দ্বের ইঙ্গিত পাচ্ছেন কেউ কেউ।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৬ ঘণ্টা, জুন ২২, ২০১৮
এমজেএফ 

স্ত্রীর চিকিৎসা করাতে এসে দুর্ঘটনায় স্বামীর মৃত্যু
পাঁচবিবিতে সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুলছাত্রের নিহত
মাদক নির্মূলে রাজধানীতে সাইকেল শোভাযাত্রা
রাজশাহী নগর জামায়াতের আমিরসহ গ্রেফতার ২
বরিশালে মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারি গ্রেফতার