Alexa

মহাবিপন্ন বনরুইটির ব্যাপারে উদাসীন কর্তৃপক্ষ

বিশ্বজিৎ ভট্টাচার্য বাপন, ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

পা হারানোর পথে মহাবিপন্ন ‘বনরুই’। ছবি- অনিমেষ ঘোষ

মৌলভীবাজার: খাওয়া-দাওয়া আগের চেয়ে বেড়েছে। আগ্রহ সহকারে পিঁপড়ার ডিমগুলো গোগ্রাসে খাচ্ছে। শরীরে রয়েছে বেশ চটপটে ভাব। তবে পেছনের পা দুটো আগের মতোই প্যারালাইসড (অবশ)। পেছনের পা দুটো মাটিতে ঘসে ঘসে তাকে এগোতে হচ্ছে।

এই ছিল সম্প্রতি শ্রীমঙ্গলে আটক পৃথিবীব্যাপী মহাবিপন্ন বনরুইটির সবশেষ অবস্থা। গত বৃহস্পতিবার (২৬ এপ্রিল) সকালে শ্রীমঙ্গল উপজেলার ইছবপুর এলাকা থেকে সবজি ক্ষেতে জালে আটকে থাকা অবস্থায় এ স্তন্যপায়ী প্রাণীটিকে উদ্ধার করে শ্রীমঙ্গলের বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশন।

এর দু’দিন পর হাঁটতে না পারা অবস্থাতেই এই বিপন্ন প্রাণীটিকে রোববার (২৯ এপ্রিল) দুপুরে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের অরক্ষিত রেসকিউ সেন্টারে আনা হলে বন্যপ্রাণী গবেষক ও স্থানীয় সংবাদকর্মীদের আপত্তির মুখে পুনরায় এ বনরুইটিকে বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনে ফিরিয়ে নেওয়া হয়।  

এদিকে সরকারি কর্তৃপক্ষেরও রয়েছে এ ব্যাপারে চরম উদাসীনতা। এই মহাবিপন্ন প্রাণীটিকে দেখতে অদ্যাবধি যাননি মৌলভীবাজার বন্যপ্রাণী রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) মোহাম্মদ আনিসুর রহমান।

এ বিষয়টি বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেছেন বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের পরিচালক সজল দেব। আক্ষেপের সঙ্গে তিনি বলেন, এটি বিপন্ন একটি প্রাণী। কিন্তু যাদের এ ব্যাপারে সবচেয়ে বেশি দায়-দায়িত্ব থাকার কথা তারাই আসছেন না এবং এর কোনোপ্রকার খোঁজ-খবরও নিচ্ছেন না।

সজল দেব আরও বলেন, আমাদের বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে এর প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও পরিচর্যায় আমরা কোনো ত্রুটি রাখছি না। উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরের ভেটেরিনারি সার্জন ডা. মো. আরিফুল ইসলামের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ করে এর চিকিৎসা চলছে। তিনিও ঢাকা জাতীয় চিড়িয়াখানার কিউরেটরের সঙ্গে যোগাযোগ করে প্রয়োজনীয় পরামর্শ নিচ্ছেন। বহু কষ্ট করে দূর-দূরান্ত থেকে লাল পিঁপড়ার বাসাসহ ডিমগুলো সংগ্রহ করে এনে তাকে খাওয়ানো হচ্ছে।   

বনরুইয়ের বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে এসিএফ মোহাম্মদ আনিসুর রহমান বলেন, ব্যস্ত আছি। পরে কথা বলেন।

আন্তর্জাতিক প্রকৃতি ও প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ সংঘ (আইইউসিএন) এর পেঙ্গুইন স্পেশালিস্ট গ্রুপের সদস্য অনিমেষ ঘোষ বাংলানিউজকে বলেন, আমি ঢাকা থেকে এসে দেখলাম বনরুইটির অবস্থা তেমন বর্তমানে ভালো নয়। পেছনের পা দুটো প্যারালাইড হয়ে যাওয়ার পথে। তবে নিজ থেকে খাচ্ছে এটি একটি আশার দিক।

তিনি আরও বলেন, আমরা পেঙ্গলিন স্পেশালিস্ট গ্রুপের পক্ষ থেকে অস্ট্রেলিয়া ও হংকংয়ের দু’জন বিশেষজ্ঞের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। তাদের ধারণা, এমন অবস্থায় তার সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা খুব কম থাকে। তারপরও তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখার কথা জানিয়েছেন তারা। আমাদের মহাবিপন্ন প্রাণীটির ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আরও দায়িত্বশীল হওয়া প্রয়োজন।

বনরুইটি প্লাস্টিক জালে দীর্ঘসময় আটকে থাকায় তার পেছনের দুই পায়ে এই সমস্যা হয়ে থাকতে পারে বলে জানান অনিমেষ ঘোষ।

ভিডিও ক্লিপ:

**সেই মহাবিপন্ন ‘বনরুই’ গেলো সেবা ফাউন্ডেশনে

বাংলাদেশ সময়: ২০৪০ ঘণ্টা, মে ৬, ২০১৮
বিবিবি/এএ

ঈদের পর পুঁজিবাজারে ফের দরপতন
ফিরতি পথেও লঞ্চে অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ন্ত্রণে ব্যবস্থা
দুর্ভোগ না কমা পর্যন্ত ত্রাণ দেওয়া অব্যাহত থাকবে
শিয়াল মারার ফাঁদে পা আটকে বৃদ্ধার মৃত্যু 
কোটালীপাড়ায় খাল থেকে স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার