Alexa

গুয়াতেমালায় অগ্ন্যুৎপাতের ছাই ১০ কিমি আকাশে, নিহত ২৫

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

রোববার জেগে ওঠে ‘ফুয়েগো’ নামে আগ্নেয়গিরিটি। ছবি: সংগৃহীত

মধ্য আমেরিকার দেশ গুয়াতেমালায় একটি আগ্নেয়গিরির ভয়াবহ অগ্ন্যুৎপাতে অন্তত ২৫ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও প্রায় শ’খানেক। আগ্নেয়গিরি থেকে নির্গত ছাই উড়ছে ১০ কিলোমিটার ওপরে পর্যন্ত। উৎকট কালো ধোঁয়া ও গন্ধের কারণে স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস নেওয়া দায় হয়ে পড়ছে এলাকার লোকজনের। সেজন্য ওই এলাকা থেকে নিরাপদ স্থানে সরে যাচ্ছে মানুষ।

‘ফুয়েগো’ নামে আগ্নেয়গিরিটি রোববার (৩ জুন) জেগে উঠলে লাভার উদগিরণ হতে থাকে। ছড়িয়ে পড়তে থাকে ছাই। রাজধানী গুয়াতেমালা সিটির প্রায় ৪৪ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এই আগ্নেয়গিরির লাভা-ছাইয়ে আক্রান্ত হতে থাকে বারানকাস দে সেনিজাস, মিনারেল, সেকা, তানিলুয়া, লাস লাজাস, বারানকা হোন্ডাসহ অনেক জনপদ।

দেশটির জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থা বলেছে, এল রোডেও নামে একটি গ্রামের ওপর দিয়ে আগ্নেয়গিরির লাভার নদী বয়ে গেছে যেন। এতে সেখানকার একটি বাড়ি ও তার ভেতরে থাকা লোকজন পুরোপুরি ভস্মীভূত হয়ে গেছে। ছাইয়ের কারণে রাজধানীর ল্য অরোরা বিমানবন্দর বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

চলতি বছর দ্বিতীয়বারের মতো ‘ফুয়েগো’র এ ভয়াবহ অগ্ন্যুৎপাতের বিষয়ে প্রেসিডেন্ট জিমি মোরালেস বলেছেন, পরিস্থিতি মোকাবেলায় জরুরি বাহিনী তৎপর হয়েছে।

স্থানীয় প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তা সার্জিও কাবানাস বলেন, লাভার নদীতে এল রোদেওর জনজীবনে বিভীষিকা নেমে এসেছে। পুড়ে মরেছে মানুষ। আহত হয়েছে আরও অনেকে। দুর্ভাগ্যবশতঃ লা লিভার্তাদ গ্রামে আমরা পৌঁছাতেই পারিনি এই ভয়াবহ লাভার কারণে। সম্ভবত সেখানেও লোকজন প্রাণ হারিয়েছে।

আক্রান্ত এলাকা থেকে নিরাপদে সরে আসা লোকজন বলছেন, অনেকেই লাভার চক্রে আটকা পড়ে বেরোতে পারেননি। অনেকেই হয়তো বাড়িঘরে পুড়ে মরেছেন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এই আগ্নেয়গিরিতে সর্বপ্রথম ১৯৭৪ সালে অগ্ন্যুৎপাত হয়। তারপর থেকে নিয়মিত বিরতিতে এর লাভা-ছাই ছড়াতে থাকে।

সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, এবার এই অগ্ন্যুৎপাতে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ১৭ লাখ মানুষ। চলাচলের ক্ষেত্রে লোকজনকে মাস্ক পরে রাস্তায় নামার নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে সরকারের তরফ থেকে।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৩৫ ঘণ্টা, জুন ০৪, ২০১৮
এইচএ/

নেইমারের হলুদ কার্ড নিয়ে উদ্বিগ্ন ব্রাজিল
নারায়ণগঞ্জে ট্রেনের ইঞ্জিনে প্রাণ গেলো অজ্ঞাত ব্যক্তির
মার্কো রিউসের গোলে সমতায় জার্মানি
টিকে থাকার ম্যাচে প্রথমার্ধে পিছিয়ে জার্মানি
মানুষের দিন বদল শুরু হয়ে গেছে