Alexa

মৃত্যুর ২ মাস পর হেসে উঠলেন সন্ন্যাসী!

অফবিট ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

লুয়াং ফোর পুয়ান

মৃত্যুর সময় মুখে হাসি ছিল না। কফিন খুলে দেখা গেলো জীবন্ত মানুষের মতোই স্ফিত হাসিমুখ। এমনকি সমাধিস্থ করার দু’মাস গত হলেও মরদেহ পুরোপুরি অক্ষত! যেন কিছুক্ষণ আগেই মারা গেলেন তিনি। 

লুয়াং ফোর পুয়ান। থাইল্যান্ডের ব্যাংকক শহরের একজন বৌদ্ধ সন্ন্যাসী ছিলেন। বয়স হয়েছিল ৯২। গত বছরের ১৬ নভেম্বর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। পরে তাকে পূর্ণ মর্‍যাদায় সমাহিত করা হয়। তিনি যে মন্দিরের সন্ন্যাসী ছিলেন ওই মন্দিরের পাশেই একটি কফিনে তাকে রাখা হয়েছিল। 

কম্বোডিয়া থেকে আসা লুয়াং তার জীবনের বেশিরভাগ সময় কাটিয়েছেন থাইল্যান্ডের লোপবুরি মঠে। আধ্যাত্মিক গুরু হিসেবে তিনি ব্যাপকভাবে সুখ্যাতি অর্জন করেছিলেন। 

ধর্মীয় রীতি মেনেই দু’মাস পর লুয়াংয়ের কফিন খোলা হয় চলতি সপ্তাহে।

তার অনুসারীরা কফিন খুলে মরদেহ বাইরে বের করে আনলে লুয়াংয়ের মুখ দেখে বিস্মিত হন। তারা দেখেন আশ্চর্‍যজনকভাবে লুয়াং হাসছেন। অনুসারীরা সেই অবিশ্বাস্য মুখের ছবি তুলে সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করেন। 

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদনে বলা হয়, মরদেহকে ধর্মীয় আচারের জন্য ভক্তদের সামনে দিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় তার মুখে এই সৌজন্যমূলক হাসি ফুটে ওঠে। 

খবরে বলা হয়, ওই মৃত সন্ন্যাসীর দেহ দেখে কোনোভাবেই মনে হচ্ছিল না দু’মাস আগের। বরং মনে হচ্ছিল বড়জোর ৩৬ ঘণ্টা আগে তার মৃত্যু হয়েছে।

ভক্তরা মনে করেন, তার এই হাসি প্রমাণ করে তিনি সাধনা ও ধ্যানের মাধ্যমে উচ্চস্থানে পৌঁছে গেছেন। 

লুয়াংয়ের অনুসারীরা তার মৃত্যুর ১০০তম দিন পর্যন্ত তার জন্য প্রার্থনা চালিয়ে যাবেন। এরপর তাকে আবারও সমাধিস্থ করা হবে। 

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৬, ২০১৮
এমএসএ/এএ

পুলিশ পাহারায় চলবে শাটল ট্রেন
ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটিতে ‘ব্র্যান্ড এইড’
গোপালগঞ্জে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৩৩
বগুড়ায় ট্রাক-লেগুনার সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫
মাগফেরাতের মাস মাহে রমজান