Alexa

চাঁদাবাজি মামলায় জয়পুরহাট জেলা পরিষদ সদস্য গ্রেফতার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

জেলা পরিষদের সদস্য জাহাঙ্গীর আলম

জয়পুরহাট: জয়পুরহাট সন্তাসী-চাঁদাবাজি মামলায় জেলা পরিষদের সদস্য জাহাঙ্গীর আলমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সদর উপজেলার ধলাহার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফয়েজ উদ্দীন আহম্মদের বাসায় ভাংচুর, লুটপাট ও তার দুই ছেলেকে মারপিটের অভিযোগ আনা হয় তার বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় ১৪ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ৮ থেকে ১০ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের হয়েছে। গ্রেফতার জাহাঙ্গীর আলম সদরের রামকৃষ্ণপুর গ্রামের কায়েজ উদ্দীন মন্ডলের ছেলে। তিনি জয়পুরহাট জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক।

মামলা সূত্রে জানা যায়, জাহাঙ্গীর আলম দীর্ঘদিন ধরে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে চেয়ারম্যান ফয়েজ উদ্দীনকে হুমকি দিয়ে আসছিলেন। একপর্যায়ে সোমবার (১১ জুন) রাত ১০টার দিকে জাহাঙ্গীর ও তার ২০-২২ জন সহযোগীকে সঙ্গে নিয়ে চেয়ারম্যানের বাসায় হামলা চালায়। 

এসময় তারা প্রধান গেট এবং সবকটি জানালা ভেঙে বাসায় ঢুকে একটি মোটরসাইকেল ভাংচুরসহ আলমিরাতে রাখা তিন ভরি স্বর্ণ ও নগদ দুই লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়।

জয়পুরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) মমিনুল হক বাংলানিউজকে বলেন, এ ঘটনায় ওই রাতেই ইউপি চেয়ারম্যান ফয়েজ উদ্দীন বাদি হয়ে জাহাঙ্গীর আলমসহ তার সহযোগীদের নামে একটি সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করেছেন। 

এ ঘটনায় পুলিশ দুপুরে জাহাঙ্গীর আলমকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৪ ঘণ্টা, জুন ১২, ২০১৮
জিপি

পঞ্চগড়ে জমে উঠেছে দেশি গরুর হাট
লোকাল ট্রেনের টিকিট পেতে কমলাপুরে উপচেপড়া ভিড়
আইরিশদের বিপক্ষে বৃষ্টি আইনে হার সৌম্যদের
দামে বেশি হলেও দেশি গরুতে আগ্রহ ক্রেতাদের
পুরনো চেহারায় ফিরছে ঢাকার পরিবহন ব্যবস্থা