Alexa

ইউনিভার্সিটি মালায়াতে বিদেশি শিক্ষার্থীদের বেতন বাড়লো

মাজেদুল নয়ন, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ইউনিভার্সিটি মালায়া/ফাইল ছবি

ঢাকা: বিদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য বেতন বাড়ালো বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ের ২৩নং বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি মালায়া। মালয়েশিয়ার প্রথম এই বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে প্রায় ৮ শতাধিক বাংলাদেশি শিক্ষার্থী। অপ্রত্যাশিত এই বেতন বৃদ্ধিতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেক শিক্ষার্থী।

বিশ্ববিদ্যালয়টি সেমিস্টার প্রতি কিছু ক্ষেত্রে ৪ হাজার ৫০০ রিঙ্গিত, অর্থাৎ প্রায় ৯৫ হাজার টাকা বেতন বৃদ্ধি করেছে। 

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ দীর্ঘ বিবৃতি দিলেও কবে থেকে এই বেতন বৃদ্ধি কার্যকর করা হয়েছে বা কেন আর্ন্তজাতিক শিক্ষার্থীদের আগেই বেতন বৃদ্ধির বিষয়টি জানানো হয়নি, সে ব্যাপারে কিছুই জানানো হয়নি।

বিবৃতিতে বলা হয়, অনুষদগুলোর প্রোগ্রামের খরচের তুলনায় নতুন এই ফি আসলে তেমন কিছুই না।

এর আগে গত ১১ জানুয়ারি ১৫ জন বিদেশি শিক্ষার্থীর একটি গ্রুপ মালয়েশিয়ার দৈনিক স্টার’কে বলেন, তারা মালয়েশিয়া আসার পর কোর্সের রেজিস্ট্রেশন করতে গেলেই বিষয়টি জানানো হয়। এই বেতন বৃদ্ধি কোর্স প্রতি ভিন্ন। তবে কয়েকশ’ রিঙ্গিত থেকে শুরু করে বছরে ৯ হাজার রিঙ্গিত পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে।

শিক্ষার্থীরা তাদের বিবৃতিতে বলেছেন, নতুন টিউশন ফি নিয়ে তারা অভিযোগ করছেন না। তবে হঠাৎ ফি বৃদ্ধিতে ধাক্কা খেয়েছেন।

একজন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী নাম প্রকাশ না শর্তে বাংলানিউজকে বলেন, আমাদের যখন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ার জন্য অফার করা হয় তখন প্রতি সেমিস্টারে ফি ছিলো ৬ হাজার ৭২০ রিঙ্গিত। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১ লাখ ৪১ হাজার। অথচ এখানে এসে দেখতে পাচ্ছি থাকার ব্যবস্থা এবং রেজিস্ট্রেশনসহ প্রতি সেমিস্টারে খরচ হবে ৯ হাজার ১৪০ রিঙ্গিত। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১ লাখ ৯২ হাজার।

আমি যদি আগে থেকেই এই খরচের কথা জানতাম, তবে অন্য কোথাও পড়তে যেতাম, বলেন ওই শিক্ষার্থী। 

নাইজেরিয়ার আরেক শিক্ষার্থী বলেন, আমরা এখনো জানি না এটাই কি চূড়ান্ত খরচ কিনা। নাকি আবারো আগামী সেমিস্টারে কর্তৃপক্ষ বেতন বাড়াবে। 

এ বিষয়ে ন্যাশনাল কনজিউমার কমপ্লেইন্টস সেন্টারের সিনিয়র লিগ্যাল অ্যান্ড পলিসি ম্যানেজার সাবানা নাসির আহমেদ বলেন, ইউনিভার্সিটি মালায়া শিক্ষার্থীদের মতামত না নিয়েই বিষয়টি করেছে। তাদের কোথায় খরচ বেড়েছে বা কমেছে সেটা বড় বিষয় নয়। বিষয় হচ্ছে শিক্ষার্থীদের অবহিত না করেই তারা বিষয়টি করেছে।

ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের ন্যাশনাল কনজিউমার কমপ্লেইন্টস সেন্টার এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ করার সুপারিশ করেন তিনি। 

বাংলাদেশ স্টুডেন্ট অর্গানাইজেশন মালয়েশিয়ার সাধারণ সম্পাদক শরীফুল ইসলাম বাংলানিউজকে জানিয়েছেন, ইউএম’এ ২৭ হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে। তার মধ্যে ৩ থেকে ৪ শতাংশ বাংলাদেশি। এই বিবেচনায় সেখানে ৮০০ থেকে এক হাজার বাংলাদেশি মেধাবী শিক্ষার্থী রয়েছে। 

বাংলাদেশ সময়: ১২৩০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৭, ২০১৮
এমএন/জেডএস

অসুস্থ সাবেক ভিসি ও মুক্তিযোদ্ধার পাশে মেয়র লিটন
প্রবীণ সাংবাদিক গোলাম সারওয়ারের মৃত্যুতে ক্র্যাবের শোক 
ট্রাফিক সপ্তাহ: সিলেটে মামলা ৩ হাজার ৭৫৮ 
কলারোয়া পৌর মেয়র আকতারুল ইসলাম সাম‌য়িক বরখাস্ত 
বেগমগঞ্জে জামায়াতের আমিরসহ আটক ১১