Alexa

মেসি নিরহঙ্কারী: সুয়ারেজ

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

মেসি-নেইমার-সুয়ারেজ- ছবিঃ সংগৃহিত

ফুটবল রেকর্ডের বরপুত্র হওয়া সত্ত্বেও পা মাটিতেই থাকে লিওনেল মেসির। এতো এতো অর্জন নিয়েও মেসি নিরহঙ্কারী। বার্সেলোনার সতীর্থ ও প্রিয় বন্ধু মেসির প্রশংসা করে বললেন উরুগুইয়ান তারকা লুইস সুয়ারেজ।

দিন দিন ব্যক্তিগত অসামান্য সব অর্জনে বাকি সবাইকে যোজন যোজন পিছনে ফেলে দিচ্ছেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক লিওনেল মেসি। পাঁচবারের ব্যালন ডি’র জয়ী মেসি ক্লাব ফুটবলে বার্সার হয়ে ৫৫২ গোলের রেকর্ড গড়েছেন। এসমস্ত অর্জন সত্ত্বেও ক্লাবের সকল সতীর্থ এবং ব্যক্তিগতভাবে মেসি এখনও মাটির মানুষ।

প্রিয় বন্ধু মেসির বন্দনা করে সুয়ারেজ বলেন, ‘লিও আমার সতীর্থ ও বন্ধু, একজন অসাধারণ মানুষ এবং দারুণ পারিবারিক মানুষ।‘

‘আমি তাকে বাকি পৃথিবীর মতো করে দেখিনা। তবে মাঠেও আমার সাথে এমন হয় যখন আমি বুঝতে পারি যে সে কতো বড় ফুটবলার ও কতো অবিশ্বাস্য কাজ সে করতে পারে।‘

উরুগুয়ের বার্সা তারকা লুইস সুয়ারেজ তার বদমেজাজ বিশেষ করে কামড়ের জন্য পরিচিত ছিলেন। বারবার এই কামড়ের কারণেই খবরের শিরোনাম হয়েছেন, বিতর্কের ঝড় তুলেছেন, এমনকি ফুটবল থেকেও নিষিদ্ধ হয়েছেন এই উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার। অথচ ২০১৪ সালে বার্সেলোনায় এসেই যেন ভিন্নরূপে ধরা দিলেন তিনি। একেবারের শান্ত মানুষটি যেন। নিজের এই পরিবর্তনের জন্যও মেসির অবদানের কথা স্বীকার করেন সুয়ারেজ।

মেসির সাথে তার সম্পর্কের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা একসাথে মজা করি, পান করি, মাঝেমাঝে একসাথে খাই। এর মাধ্যমে আমাদের মধ্যে দারুণ এক সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। এবং বাড়তি হিসেবে বিশ্বাসের বন্ধনও তৈরি হয়েছে।‘

তিনি আরও বলেন, ‘ফুটবলে প্রকৃত বন্ধু খুঁজে পাওয়া কঠিন, বিশেষ করে যদি সে একই পজিশনে খেলে। অনেক সময় অহংকারও কাজ করে। আমাদের দলে এমন কিছুই নেই। এটা বছরের পর বছর ধরেই প্রমাণিত।‘

নিজের অর্জনের কথা বলতে গিয়েও মেসির প্রশংসা করে সুয়ারেজ বলেন, ‘সে (মেসি) আমাকে গোল্ডেন বুট পেতে সাহায্য করেছে। আমাদের ভেতরে কোন অহংকার কাজ করেনা। শুধু বন্ধুর সাথে কিছু শেয়ার করার গর্ব ছাড়া।‘

একসময় ব্রাজিলের নেইমার জুনিয়র, মেসি ও সুয়ারেজ মিলে ‘এমএসএন’ নামে ভয়ানক ত্রয়ী গড়ে তুলেছিলেন। কিন্তু ২০১৭ সালে নিজের আলাদা ক্যারিয়ার গড়তে ২২২ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ে পাড়ি দেন নেইমার। তার বিদায়ে ভেঙে যায় এই ত্রয়ী। সুয়ারেজ তাকে বার্সায় থেকে যেতেই উৎসাহিত করেছিলেন। তবে নেইমার তাতে কর্ণপাত করেন নি।

এই বিষয়ে সুয়ারেজ বলেন, ‘আমরা (মেসি ও সুয়ারেজ) নেইমারের সাথে কথা বলেছিলাম, কারণ সে আমাদের মতামত জানতে চেয়েছিলো। তার (নেইমার) ভিতরে সংশয় ছিল। সে এখানে অনেক দিন ছিল এবং এখানে তার সবকিছুই চাহিদামতো ছিল।‘

বাংলাদেশ সময়ঃ ২২১২ ঘন্টা, জুন ০৪, ২০১৮

এমএইচএম 

সুধীন্দ্রনাথ দত্তের প্রয়াণ
পছন্দের পাত্রী পাবেন তুলা
পোল্যান্ড-কলম্বিয়া ম্যাচের একাদশ
রাখাইনে শান্তিরক্ষী পাঠানোর কথা ভাবছে না জাতিসংঘ
২-২ গোলে ড্র করলো সেনেগাল-জাপান